অবশেষে হেরে গেলেন উসাইন বোল্ট

প্রথম প্রকাশঃ আগস্ট ৬, ২০১৭ সময়ঃ ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ

ক্যারিয়ারের শেষ দৌঁড়ে পরাজিত হলেন উসাইন বোল্ট। হ্যাঁ, যা পড়ছেন ঠিকই পড়ছেন।অবশেষে প্রমাণ হলো তিনিও মানুষ। তিনিও হারতে পারেন। কোনো না কোনো এক সময় এসে তিনিও দ্বিতীয় কিংবা তৃতীয় হতে পারেন। তবে সেই দ্বিতীয় কিংবা তৃতীয় হওয়ার দুর্ভাগ্যটা বরণ করতে হলো তাকে জীবনের শেষ দৌঁড়ে এসে। উসাইন বোল্ট হেরে গেলেন আমেরিকান দৌড়বীদ জাস্টিন গ্যাটলিনের কাছে। দ্বিতীয় নয়, শেষ দৌড়ে তিনি হলেন তৃতীয়।

সারা দুনিয়া বসে ছিল টিভির সামনে। মাত্র ১০ সেকেন্ডের দুনিয়া কাঁপিয়ে দেয়া এক দৌড়। ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিক থেকে শুরু করে যেখানেই অ্যাথলেটিক ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে নেমেছেন, সেখানেই অপরাজেয়। দ্বিতীয় হতে হয়নি কখনও তাকে।

সেই গতি দানব উসাইন বোল্ট কি না ক্যারিয়ারের শেষ দৌঁড়ে এসে হেরে গেলেন! লন্ডন বিশ্ব অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশিপে এসে মার্কিন স্প্রিন্টার জাস্টিন গ্যাটলিন হারিয়ে দিলেন বোল্টকে। শুধু জাস্টিন গ্যাটলিন নয়, আরেক মার্কিন উদীয়মান দৌড়বীদ ক্রিশ্চিয়ান কোলম্যানও হারিয়েছেন বোল্টকে।

লন্ডন অলিম্পিক স্টেডিয়ামে কানায় কানায় পূর্ণ গ্যালারি অধীর আগ্রহে তাকিয়েছিল বোল্টের দিকে; কিন্তু দৌড় শেষে সবাই অবাক বিস্ময়ে লক্ষ্য করল স্কোরবোর্ডে ৯.৯২ সেকেন্ড সময় নিয়ে সবার আগে দৌড় শেষ করলেন জাস্টিন গ্যাটলিন। ৯.৯৪ সেকেন্ড সময় নিয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন ক্রিশ্চিয়ান কোলম্যান। ৯.৯৫ সেকেন্ড সময় নিয়ে তৃতীয় হয়েছেন বোল্ট।

২০১৬ রিও অলিম্পিকের সময়ই বোল্ট ঘোষণা দিয়েছিলেন, লন্ডন অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশিপই তার শেষ। এরপরই বিদায় জানাবেন অ্যাথলেটিক ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডকে। ৮টি অলিম্পিক (মূলতঃ ৯টি। একটি রিলে ইভেন্ট সতীর্থের ডোপ পাপের কারণে বাতিল হয়ে গিয়েছে) এবং ১১টি বিশ্ব অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশিপের স্বর্ণ জয়ই ছিল তার শেষ। একে আর ১২টি করতে পারলেন না।

এমন একজনের কাছে বোল্ট হেরেছেন, যিনি দু’বার ডোপ পাপে কলঙ্কিত হয়ে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। তবে পুরো ক্যারিয়ারে অন্যতম হুমকি হয়ে থাকা জাস্টিন গ্যাটলিনও কম যাননি। বার বার হেরে গিয়েও, ডোপ পাপে নিষিদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও তিনি নিজেকে ধরে রেখেছিলেন এবং তিলে তিলে নিজেকে গড়ে তুলেছিলেন, একবার হলেও বোল্টকে পরাজয়ের স্বাদ উপহার দেয়ার জন্য। সেটা অবশেষে পারলেন তিনি জ্যামাইকান বজ্র মানবের শেষ দৌড়ে এসে।

বোল্টের জন্য আগে থেকেই অশনি সঙ্কেত ছিল। মৌসুমের শুরু থেকে এ পর্যন্ত যে ক’বার দৌড়েছিলেন, প্রতিবারই হতাশাজনক টাইমিং বোল্টের। ১০ সেকেন্ডের ওপরই থাকছেন বার বার। যদিও লন্ডন আসার আগে মোনাকোয় ১০ সেকেন্ডর কম সময় নিয়ে দৌড়েছেন।

লন্ডন বিশ্ব অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশিপের হিটেও তার টাইমিং ছিল যথেষ্ট আশঙ্কাজনক। ১০ সেকেন্ডরও বেশি সময় নিয়েছিলেন তিনি। যা নিয়ে নিজেও ছিলেন অখুশি। যদিও সেমিতে ‍উঠতে সমস্যা হয়নি তার। নিজের হিটে প্রথমই হয়েছিলেন। এরপর আজ সেমিফাইনালেও হেরে গিয়েছিলেন। গ্যাটলিন এবং কোলম্যানের কাছেই। হয়েছিলেন তৃতীয়। তবে কেউ ভাবতে পারেনি সেমির রেজাল্ট ফাইনালেও পূনরাবৃত্তি হবে।

দৌড় শেষ হওয়ার পর দেখা খেল দারুণ সৌহাদ্য। জাস্টিন গ্যাটলিনই এসে হাঁটুমুড়ে বোল্টের সামনে বসে তাকে বিদায়ী অভিবাদন জানালেন। সত্যিকারের কিংবদন্তিকে এভাবে বিদায় জানানোটাও তো সৌভাগ্যের। বোল্টও আবেগে আপ্লুত হয়ে গেলেন। জড়িয়ে ধরলেন গ্যাটলিনকে। ক্যারিয়ারের সর্বশেষ ব্যাক্তিগত দৌড় শেষ করার পর বিদায় নিলেন জনতার কাছ থেকেও। ১২ আগস্ট অংশ নেবেন দলগত ইভেন্ট ১০০ মিটার রিলেতে।

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

0cc0