মাহফুজুর রহমানের কবিতা- মধ্যবিত্ত বাঙালি

প্রথম প্রকাশঃ আগস্ট ১০, ২০১৭ সময়ঃ ৪:০৮ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৪:০৮ অপরাহ্ণ

এ.কে.এম. মাহফুজুর রহমান:

যদি নিজেকে নিয়ে সমালোচনা হয় এই ভয়ে ,
মধ্যবিত্ত বাঙালি ফুল দেখে বলতে পারে না ;
আহ্ ! কী অপরূপ নৈসর্গিক সৌন্দর্য !

যদি পরিবার – পরিজনকে নিয়ে হাসি – ঠাট্টা হয় ,
মধ্যবিত্ত বাঙালি পাহাড়ে উঠে সমুদ্র দেখতে পারে না ;
আহ্ ! পৃথিবীর বিপুল আয়োজনে সঙ্গী হতে পারে না !

যদি নিজের উপর অশান্তির ঢেউ ছুটে আসে এই ভয়ে ,
মধ্যবিত্ত বাঙালি অন্যায় দেখে চিৎকার করতে পারে না ;
উহ্ ! বন্ধ কর যত সব অন্যায় – অধর্ম !

যদি জীবনে ছন্দপতনের ঝুঁকি নিতে হয় এই ভয়ে ,
মধ্যবিত্ত বাঙালির বিপ্লব কখনও অঙ্কুরোদগম হয় না ;
এসো ! শোষণের মসনদে আগুন জ্বালি এক সাথে !

মধ্যবিত্ত বাঙালির আত্মসম্মানবোধ প্রবল ,
নিতান্ত প্রয়োজনেও কারো সাহায্য চাইতে রুচিতে বাঁধে ;
প্রখর ব্যক্তিত্ববোধে ভাঙবে তবু মচকাবে না !

মধ্যবিত্ত বাঙালি চাকরির খোঁজে ঘুরে সব ঘাটে ;
মধ্যবিত্ত বাঙালি আত্মঅহংকারের জাবর কাটে ;
তথাপি সদা লাজ ; সদা ভয় ; কখন জানি কী হয় !

মধ্যবিত্ত বাঙালি স্বপ্ন দেখতেও ভয় পায় ,
কখন জানি কী হয় ; অজানা আতঙ্কে ডুবে রয় ;
কপালের লিখন না যায় খন্ডন বলে চেষ্টাহীন রয় !

মধ্যবিত্ত বাঙালি শত ঘাত – পদাঘাতেও নিশ্চুপ !
মধ্যবিত্ত বাঙালি তত অভাবে – স্বভাবেও নিস্তরঙ্গ !
মধ্যবিত্ত বাঙালি জলতরঙ্গেও মধুমেহ অন্তরঙ্গ !

মধ্যবিত্ত বাঙালি অর্থনৈতিক অভাবে সদা নিমজ্জিত রয় 
অন্যের সাহায্য নিতে সংকোচে কাটে দ্বিধান্বিত হৃদয় ,
পরিবারের উন্নয়নের চাকা ঘোরাতে দেশান্তরী হয় সময় !

মধ্যবিত্ত বাঙালি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হয় না ;
মধ্যবিত্ত বাঙালির কলা গাছ শুকিয়ে আঙ্গুল হয় না ;
প্রথমত , দ্বিতীয়ত এবং শেষপর্যন্ত – মধ্যবিত্ত মধ্যবিত্তই !

মধ্যবিত্ত বাঙালি বলেই ” যত দোষ নন্দ ঘোষ ” ।
মধ্যবিত্ত বাঙালি মানেই প্রতিনিয়ত পরীক্ষার মুখোমুখি ! 
মধ্যবিত্ত বাঙালি ফলেই প্রতিক্ষণ কষ্টের চোখাচোখি !

মধ্যবিত্ত বাঙালি ঠকে গিয়েও ইজ্জত রক্ষায় ব্যস্ত !
মধ্যবিত্ত বাঙালি ইজ্জত দিয়েও ইজ্জত রক্ষায় ব্যস্ত !
মধ্যবিত্ত বাঙালি মরে গিয়েও ইজ্জত রক্ষায় ব্যস্ত !

মধ্যবিত্ত বাঙালির সহ্যের কোনো সীমা – পরিসীমা নেই ;
যদিও সভ্যতা জানে সহ্যেরও একটা সীমা আছে ।
মধ্যবিত্ত বাঙালি সর্বংসহা সুবোধ প্রাণী বটে !

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

0cc0