কাতার বিশ্বকাপ : কাজ করতে গিয়ে ৪০০-৫০০ অভিবাসী শ্রমিক মারা গেছে

প্রথম প্রকাশঃ নভেম্বর ৩০, ২০২২ সময়ঃ ২:২০ পূর্বাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:২০ পূর্বাহ্ণ

ক্রীড়া ডেস্ক

মধ্যপ্রাচের দেশ কাতারে বিশ্বকাপ আসরের মধ্যভাগ চলেছে। এরই মধ্যে বোমা ফাঁটালেন কাতার বিশ্বকাপের প্রধান হাসান আল-থাওয়াদি। তিনি আজ বিশ্ব সাংবাদিকদের সামনে বলেছেন, কাতারে টুর্নামেন্টের সাথে যুক্ত প্রকল্পগুলিতে কাজ করার ফলে ৪০০ থেকে ৫০০ অভিবাসী কর্মী মারা গেছে। কাতারি কর্মকর্তারা পূর্বে যে মারা যাবার সংখ্যা বলেছিল এটা তার চেয়েও বড় সংখ্যা।

সোমবার টক টিভিতে প্রচারিত পিয়ার্স মরগানের সাথে একটি সাক্ষাত্কারে, আল-থাওয়াদিকে টুর্নামেন্টে করা কাজের ফলে অভিবাসী শ্রমিকদের মৃত্যুর সংখ্যা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল। তখন তিনি বলেন: “আনুমানিক প্রায় ৪০০ থেকে ৫০০ এর মধ্যে হবে। আমার কাছে সঠিক সংখ্যা নেই, এটি নিয়ে আগেও আলোচনা করা হয়েছে।”

আল-থাওয়াদি আরো বলেন: “আমি মনে করি প্রতি বছর সাইটগুলিতে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার মান উন্নত হচ্ছে। অন্তত আমাদের সাইটগুলিতে বিশেষ করে বিশ্বকাপের সাইটগুলিতে যেগুলির জন্য আমরা দায়।”

২০২২ সালের নভেম্বরে একজন সরকারী কর্মকর্তা সিএনএনকে বলেছিলেন, বিশ্বকাপের স্টেডিয়ামে তিনটি কাজ-সম্পর্কিত মৃত্যু হয়েছে ৩৭ জনের। মঙ্গলবার কাতারের সুপ্রিম কমিটি ফর ডেলিভারি অ্যান্ড লিগ্যাসি (এসসি) এর একজন মুখপাত্র এই পরিসংখ্যানগুলি আবারো জানিয়েছেন। এক বিবৃতিতে, মুখপাত্র বলেন: “পরিসংখ্যান সম্পর্কিত পৃথক উদ্ধৃতিগুলি ২০৪-২০২০ সময়কালের জাতীয় পরিসংখ্যানকে নির্দেশ করে কাতারে দেশব্যাপী সমস্ত কর্ম-সম্পর্কিত মৃত্যুর (৪১৪) জন্য সমস্ত সেক্টর এবং জাতীয়তাকে কভার করে।”

এদিকে দ্য গার্ডিয়ান গত বছর রিপোর্ট করেছে যে কাতারে ২০১০ সালে বিশ্বকাপের আয়োজক হওয়ার পর থেকে ৬ হাজার ৫০০ দক্ষিণ এশীয় অভিবাসী শ্রমিক মারা গেছে। যাদের বেশিরভাগই কম মজুরি, বিপজ্জনক শ্রমে জড়িত ছিল, প্রায়শই প্রচণ্ড গরমে কাজ করছে শ্রমিকরা।

প্রতিবেদনটি বিশ্বকাপের অবকাঠামো প্রকল্পের সাথে ৬ হাজার ৫০০ মৃত্যুর সংখ্যাকে সংযুক্ত করেনি। সিএনএনকে স্বাধীনভাবে যাচাই করতে দেয়া হয়নি বলেও সিএনএন রিপোর্ট করেছে।

সূত্র : সিএনএন

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

20G