চবি সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী মনসুর স্মরণে শোকসভা

প্রকাশঃ ডিসেম্বর ৬, ২০১৯ সময়ঃ ৭:০৯ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৭:৫১ অপরাহ্ণ

চবি সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী অকাল প্রয়াত সাংবাদিক মনসুরের শোকসভা আজ সকালে ডিআরইউতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১৪তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী ও অনলাইন পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনের সহ-সম্পাদক  ছিলেন মনসুর আলী। তার অকাল মৃত্যুতে চবি সাংবাদিকতা বিভাগের এল্যামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুণি মিলানায়তনে আজ ৬ই ডিসেম্বর ২০১৯ শুক্রবার সকাল ১০ টায় শোক-সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মনসুর আলীর অকাল প্রয়াণে গভীর সমবেদনা প্রকাশ করে প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য জনাব আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, মানব সমাজের প্রত্যেকেই মানবিক হতে হবে। ভবিষ্যতে আমদের যেনো এরকম কারো অকাল মৃত্যুর সংবাদ শুনতে না হয় সে জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে এখনি। তিনি বলেন, আমাদের আত্মশুদ্ধির চেষ্ঠা করা দরকার। আমি নিজে যদি মানবিক হয়ে উঠি তবে এদেশ অনেক এগিয়ে যাবে। আমাদের সমাজে আজ মানবিকতার বিশেষ প্রয়োজন। এ জন্য আমাদেরকে মানবিকতার বিষয়ে অনেক গুরুত্ব দিতে হবে। আমরা মানবিক গুণসম্পন্ন হয়ে উঠলে মনসুর আলীর মতো আর কারো অকালে ঝরে যেতে হবে না।

বিশেষ অতিথীর বক্তব্যে আর্টিক্যাল ১৯ এর বাংলাদেশ ও দক্ষিন এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক জনাব ফারুক ফয়সাল বলেন, আমরা সাধারণত মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে কাজ করি। কিন্তু এই শোকসভায় বক্তাদের বক্তব্যে যে সাংবাদিকদের কর্মক্ষেত্রে যে বিভিন্ন চাপের বিষয় এসেছে তা নিয়েও আমাদের কাজ করতে হবে।

আর্টিক্যাল ১৯ এর পক্ষ থেকে প্রধান অতিথির মাধ্যমে মনসুরের দুইভাইকে তাঁদের পরিবার ও মায়ের চিকিৎসার জন্য ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকার একটি চেক হস্তান্তর করা হয় ।

চবি যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ জসীম উদ্দিন খান এর সভাপতিত্বে ও এসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক তন্ময় মজুমদারের সঞ্চালনায়, বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি ও এলামনাই এসোসিয়েশনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক সহযোগী অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, সাবেক শিক্ষাথী মনসুরের মৃত্যুর সুষ্ঠ তদন্ত দাবি করেন। তিনি আরো বলেন, আমরা যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ পরিবারের পক্ষ থেকে মনসুরের পরিবারের জন্য যতটুকু সহযোগিতা করা সম্ভব তা করবো।

এছাড়াও বিভাগের সাবেক শিক্ষক ডঃ আব্দুর রাজ্জাক খান, এসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো ফজলুল করিম, সিনিয়র যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আফসার আহমেদ, বাংলা ট্রিবিঊনের সিনিয়র সাব-এডিটর আবু তাহের ও প্রতিবেদক সাদিক অভি, চবি যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের কাউসার শাহীন, আজিজুল ইসলাম, গোলাম রাসুল, বারেক কায়সার, আলমগীর খন্দকার, আনোয়ার রোজেন, ইমাদ বাপ্পি, মোহাম্মদ বাকের প্রমুখ সাংবাদিক মনসুর আলীকে নিয়ে তাঁদের বিভিন্ন স্মৃতি ও অনুভূতি প্রকাশ করেন।

ঊল্লেখ্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনের সহ-সম্পাদক মনসুর আলী (৩৩) মরদেহ রাজধানীর দক্ষিণ বনশ্রীর একটি ভাড়া বাসা থেকে গত ১৬ নভেম্বর উদ্ধার করে পুলিশ।

মনসুরের বাড়ি সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের কোটালপাড়ায়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে তিনি স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে ঢাকায় এসে সাংবাদিকতায় যুক্ত হন। তিনি ২০১৩ সালে অর্থসূচক ডটকম-এ কাজ করার মধ্য দিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন। এরপর ই-বার্তা ও টেকশহরে কিছুদিন কাজ করে দৈনিক ইত্তেফাকে যোগ দেন। ২০১৭ সালে তিনি বাংলা ট্রিবিউনে সাব-এডিটর (সহ-সম্পাদক) পদে যোগ দেন।

প্রতি /এডি/রন

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

জানুয়ারি ২০২০
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« ডিসেম্বর    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
20G