চলচ্চিত্রকে ভালোবেসে সংসার করিনি

প্রথম প্রকাশঃ মে ১৭, ২০১৬ সময়ঃ ৮:০৫ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৮:১৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

anjuদুই বাংলার চলচ্চিত্রেই জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন অভিনেত্রী অঞ্জু ঘোষ। বিশেষ করে এপার বাংলার দর্শকদের কাছে এই অভিনেত্রীর কদর একটু বেশিই ছিলো। বেদের মেয়ে জোছনা, প্রেম যমুনা, আর্শীবাদসহ বিভিন্ন সুপারহিট ছবিতে অঞ্জু ঘোষের অনবদ্য অভিনয় এখন বাংলা চলচ্চিত্রপ্রেমী দর্শক হৃদয়ে হয়ে আছে স্মৃতিতে অম্লান।

হঠাৎ করেই পর্দার আড়ালে চলে যান অঞ্জু ঘোষ। স্থায়ীভাবে পাড়ি জমান ওপার বাংলায়। কি কারণে, কেন- এপার বাংলার চলচ্চিত্রকে বিদায় জানালেন অঞ্জু এ নিয়ে রয়েছে নানা গসিপ।

এই নিয়ে দর্শকমহলে ক্রমেই আগ্রহ বাড়তে থাকে যখন চলচ্চিত্রের পরিচিত সবার কাছ থেকেই আড়াল হয়ে যান তিনি।

বাংলাদেশের শিল্পীরা কলকাতায় গেলেও দেখা করতেন না তিনি, এমনকি কোন সাক্ষাৎকারও নেওয়া যাচ্ছিলো না এই অভিনেত্রীর। তবে, সম্প্রতি কলকাতার একটি দৈনিক পত্রিকায় সাক্ষাৎকার দিয়েছেন অঞ্জু। অভিনয় থেকে দূরে সরে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন,

‘আমার সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির কিছু লোক আমার বিরুদ্ধাচারণ শুরু করলো। যাকে আমরা ফিল্ম পলিটিক্স বলি। যাদেরকে বন্ধু ভাবতাম তারা আমার কাছ থেকে দূরে সরে গেল। হঠাৎ আমি যেন আলো থেকে অন্ধকারে ছিটকে পড়লাম। একাকী হয়ে গেলাম।’

সহশিল্পী শাবানা, ববিতা, রোজিনা কেমন আছে জানতে চেয়ে এপার চলচ্চিত্র ও তার সহশিল্পীদের নিয়ে বলেন,

‘পুরনো দিনগুলোর কথা খুব মনে পড়ে। চলচ্চিত্রকে ভালোবেসে বিয়ে-সংসার করিনি। সব সময় এই অঙ্গনেই থাকতে চেয়েছি। কিন্তু সেটাও শেষ পর্যন্ত হয়নি। অবসরে রাজ্জাক ভাই, ইলিয়াস কাঞ্চন, মাহমুদ কলি, রুবেলসহ সবার কথাই মনে পড়ে। খুব নস্টালজিক লাগে। পরে অবশ্য নিজেকে সামলে নেই। জানি না, আমার কথা কারো মনে পড়ে কি না! শীঘ্রই বাংলাদেশে বেড়াতে যাব। তখন সবার সঙ্গে দেখা করব।’

১৯৮২ সালে এফ. কবীর চৌধুরী পরিচালিত ‘সওদাগর’ দিয়ে শুরু অঞ্জুর চলচ্চিত্র যাত্রা । অঞ্জু ঘোষ বর্তমানে কলকাতার বিশ্বভারতী অপেরার যাত্রাপালায় নিয়মিত অভিনয় করেন ।

প্রতিক্ষণ/এডি/এস আর এস

 

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

20G