মামলার প্রস্তুতির কথা শুনে শাকিবের বিস্ময়

প্রথম প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৭ সময়ঃ ৮:০৩ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:৫৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

Shakib-Khan 02বাংলা চলচ্চিত্রের আলোচিত তারকা শাকিব খান। নায়ক মান্নার মৃত্যুর পর শাকিবের ক্যারিয়ারের পালে লাগতে থাকা হাওয়া। গুণী পরিচালকদের হাত ধরে নিজ অভিনয় গুণে অন্য নায়কদের টপকে ঢালিউডের শীর্ষ আসন দখল করতে খুব একটা সময় লাগেনি তার।

একটি সময় পুরো ঢালিউডকে অনেকটাই নিজের উপর নির্ভরশীল করে ফেলেন শাকিব।

এরপর থেকেই কখনো সুপারহিট ছবি, কখনো শিল্পী সমিতির সভাপতির দায়িত্বে থেকে নিজের ভূমিকা, কখনোবা যৌথ প্রযোজনার ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে একদিকে যেমনি আলোচিত হয়েছেন এই তারকা তেমনি অপু বিশ্বাসের সাথে বিভিন্ন গুজব, সিডিউল ফাঁসানো কিংবা ওপার বাংলার ছবির প্রতি বেশি ঝোঁক দেখিয়ে হয়েছেন সমালোচিত।

এবার এই সুপারস্টারের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হার্টবিট প্রোডাকশন । এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ছবি ‘ভালবাসলেই ঘর বাধা যায় না’ এবং ‘ খোদার পরে মা’-তে অভিনয়ের মাধ্যমে শাকিব ২০১০ সালে প্রথম ও ২০১২ সালে দ্বিতীয়বার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করে শাকিব।

হার্টবিট প্রোডাকশনের অনেকটা ঘরের তারকা শাকিব খানের বিরুদ্ধে কেন এমন সিদ্ধান্ত, এ প্রসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার তাপসী ঠাকুর এক লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ‘১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে শাকিব খানকে ২০১৭ সালের রোজার ঈদের জন্য নতুন ছবির সিডিউল বাবদ ১৫ লাখ টাকা সাইনিং মানি দেয় হার্টবিট প্রোডাকশন। শাকিব খান মৌখিকভাবে কনফার্ম করেন এবং বলেন, মার্চ-এপ্রিলে সিডিউল রাখা আছে। এ বিষয়ে একাধিকার শাকিব মৌখিকভাবে কনফার্ম করেন। এতে হার্টবিট ছবি নির্মাণের সবরকম প্রস্তুতি গ্রহণ করে এবং প্রচুর অর্থলগ্নি করে। কিন্তু লিখিত সিডিউলের ব্যাপারে শাকিব টাল-বাহানা করতে থাকে।’

Shakib 01তিনি আরো উল্লেখ করেন, ‘১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে হার্টবিট প্রোডাকশন জানতে পারে যে, ভারতের শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসকে শাকিব ঈদের সিডিউল মার্চ-এপ্রিল দিয়ে দিয়েছে। তখন হার্টবিট কর্তৃপক্ষ শাকিবের কাছে সাইনিং মানির ১৫ লক্ষ টাকা ফেরত চায়।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে হার্টবিট কর্তৃপক্ষকে পুরো টাকা ফেরত তো দিলোই না, ফেরত দিবে কবে বলেননি। শাকিব হার্টবিটের ছবিতেই প্রথম ও দ্বিতীয়বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। অথচ হার্টবিটের সাথে এভাবে প্রতারণা করতে তার বিবেকে বাধলো না। দীর্ঘ চার মাসের উপর সময় ধরে হার্টবিটের সাথে ইঁদুর-বিড়াল খেলা করল।

প্রযোজক সমিতি, পরিচালক সমিতি এবং শিল্পী সমিতির কাছে প্রশ্ন একজন শাকিব খান কি যা ইচ্ছে তাই করতে পারে? হার্টবিট প্রোডাকশনের যে সামাজিক ও আর্থিক ক্ষতি শাকিব করল এজন্য হার্টবিট প্রোডাকশন অচিরেই আদালতের শরণাপন্ন হবার জন্য সব রকমের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।’

এ বিষয়ে তাপসী ঠাকুর সোমবার জানান, ‘আমরা দু-একদিনের মধ্যে মামলা করব। এখন আর বেশি কিছু বলতে চাই না, যা বলার লিখিত বক্তব্যে বলেছি।’ কথা ছিল ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত ‘লাভ ম্যারেজ-২’-এ অভিনয় করবেন শাকিব। কলকাতার শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের তিনটি ছবিতে সম্প্রতি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এ নায়ক। এরমধ্যে একটি ছবি বাংলাদেশের রোজার ঈদকে কেন্দ্র করে নির্মিত হচ্ছে। আর কলকাতার রাজীব পরিচালিত ওই ছবির শিডিউল মার্চ থেকে। মূলত এ ছবির জন্যই শাকিব শিডিউল ফাঁসিয়েছেন।’

এদিকে, হার্টবিট প্রোডাকশনের অভিযোগ ও মামলার  প্রস্তুতির কথা শুনে বিস্ময় প্রকাশ করে শাকিব খান জানান, সাইনিংমানি ফেরত দেওয়া হয়েছে, এখন এসব বললে তো হবে না। তাদের কথারই তো কোনো ঠিক নেই। একবার বলে যৌথ প্রযোজনা করবে, একবার বলে না। এমন করতে করতে আমার হাতে অন্য ছবি চলে এসেছে। আমি কী করতে পারি?’

 

প্রতিক্ষণ/এডি/এস.আর.এস

 

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

20G