সুইজারল্যান্ডের কষ্টের জয়

প্রথম প্রকাশঃ নভেম্বর ২৪, ২০২২ সময়ঃ ৬:০৩ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৬:০৩ অপরাহ্ণ

ক্রীড়া ডেস্ক

এবারের বিশ্বকাপ ফুটবল আসরের আজ ৫ম দিন। এর ভেতর একটি বিষয় পরিষ্কার হয়ে গেছে বড় দল গুলো ছোট দল গুলোর সামনে শুরু থেকেই আতংকে আছে। সৌদির কাছে ২-১ গোলে হেরে গেল ৩ নম্বরের দল আর্জেন্টিনা! ফিফার তালিকায় ১৩ নম্বরে থাকা মেক্সিকো ২৬তম দল পোলেন্ডের বিপক্ষে পেরে উঠল না! জাপান ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে হতবাক করে দিলে জার্মানকে! আজ দিনের প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ড কোন মতে ১ গোলে হারিয়েছে ক্যামেরুনকে।

ফিফার তালিকায় ১৫তম দল সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ৪৩তম দলেএক সময়ের বিশ্বকাপ কাঁপানো ক্যামেরুন আবারো জ্বলে উঠল ২০২২ সালের আসরে। ম্যাচের শুরু থেকেই শক্তিশালী সুইজারল্যান্ডের মধ্য মাঠের সৈন্যরা ক্যামেরুনের গোল বারে হানা দিতে শুরু করে। কিন্তু গোল আদায়ের মতো জোড়ালো কোন আক্রমণ রচনা করা সম্ভব হয়নি সুইজারল্যান্ডের পক্ষে। বার বারই ক্যামেরুনের ডিফেন্সের সামনে গিয়ে মুখ থুবড়ে পড়েছে সুইজারল্যান্ড।

প্রথমার্ধে সমান তালে যেভাবে খেলেছে ক্যামেরুন তাতে মনে হয়নি সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে খেলছে। ম্যাচের ১০ মিনিটে কাউন্টার এ্যাটাকে গোল পেয়েই গিয়ে ছিল ক্যামেরুন, বল গোল পোষ্টের উপর দিয়ে না গেলে লিড পেয়ে যেতে পারত আফ্রিকার এই ফুটবল দলটি। মধ্যমাঠ থেকে লম্বা কিক সুইজারল্যান্ডের গোল পোষ্টের ডান দিকে যায়, ক্যামেরুনের ১৯ নম্বর জার্সিধারী কুলিন্স চীপ সুইজারল্যান্ডের গোলরক্ষক পাঞ্চ করে ফিরিয়ে দিলে ডি-বক্সের বাইরে থাকা ১৭ নম্বর জার্সিধারী অলিভারের কিক কিপারের মাথার উপর দিয়ে খালি বার পোষ্টের উপর দিয়ে বাইরে, নিশ্চিত গোল হজম থেকে রেহাই পেয়ে গেল বড় দলের তকমা নিয়ে মাঠে নামা সুইজারল্যান্ড।

প্রধমার্ধের ২০ মিনিট পেরিয়ে যাবার পর ক্যামেরুন নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে নিজেদের জাত চেনাতে শুরু করে। কেবল আক্রমণ ভাগের ফিনিংসের অভাবে নিশ্চিত ৩টি গোল থেকে বঞ্চিত হয়েছে ক্যামেরুন। গোল শূণ্য ড্র নিয়ে দুই প্রথমার্ধ শেষ করে।

দ্বিতীয়ার্ধের ৩ মিনিটেই (ম্যাচের ৪৮ মিনিট) ক্যামেরুনের ডিফেন্সের ভূলে গোল পেয়ে গেল সুইজারল্যান্ড। মধ্যমাঠ থেকে বাড়ানো ডান প্রাপ্ত দিয়ে করা চীফ থেকে সুইজারল্যান্ডের ৭ নম্বর জার্সিধারী এ্যাম্বোলো ক্যামেরুনের গোলরক্ষকে ফাঁকায় পেয়ে বল পাঠালেন জালে (১-০)। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণ ভাগে তাপমাত্রাটা যেন বাড়ে যায় সুইজারল্যান্ডের। একাধিক গোলের সুযোগ নষ্ট হয়। যেনটা প্রথমার্ধে হয়েছিল ক্যামেরুনের।

দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি ক্যামেরুন গোল পরিশোধের আপ্রাণ চেষ্টা চালায়। কয়েকটি আক্রমণ থেকে গোল হলেও হতে পারত। কিন্তু ক্যামেরুনের দুর্দান্ত রক্ষণ ভাগ বার বার ব্যর্থ করে দিয়েছে সকল আক্রমণ। কিন্তু ৯০ মিনিটের পর অতিরিক্তি সময়ের একেবারে শেষ দিকে সুইজারল্যান্ড দ্বিতীয় গোল পাওনা ছিল। এবারও সেই ক্যামেরুণের কঠিন রক্ষণ দেয়াল উপস্থিত। ১-০ গোলে হেরে গেলেও ক্যামেরুন যা খেলেছে তা সুইজারল্যান্ডের মনে থাকবে বহু বছর।

সূত্র : ফিফা

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

20G