অর্ধবার্ষিক ব্যবসায় উন্নয়ন সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশঃ জুলাই ২৫, ২০১৬ সময়ঃ ৫:৪১ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৫:৪৩ অপরাহ্ণ

প্রতিক্ষণ ডেস্কঃ

IBBL-BDC-July 2016

বাংলাদেশ ইসলামী ব্যাংক আয়োজিত রাজধানীর একটি হোটেলে রবিবার (২৪জুলাই) অনুষ্ঠিত হয়েছে ইসলামী ব্যাংকের অর্ধবার্ষিক ব্যবসায় উন্নয়ন সম্মেলন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মুস্তাফা আনোয়ার।

ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে পরিচালকদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান এম. আযীযুল হক, এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর সৈয়দ আহসানুল আলম, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান হেলাল আহমদ চৌধুরী, রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান মো. আবদুল মাবুদ, পিপিএম, পরিচালক প্রফেসর (ডা.) কাজী শহিদুল আলম, মেজর জেনারেল (অব.) ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মতিন, মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, এফসিএ, মো. সাইফুল ইসলাম, এফসিএ, এফসিএমএ, ড. মো. জিল্লুল রহমান ও প্রফেসর এএনএম সাইদুল হক খান। প্রধান কার্যালয়ের ঊর্র্ধ্বতন নির্বাহীবৃন্দ, জোন প্রধান ও ৩০৪টি শাখার ব্যবস্থাপকগণ সম্মেলনে যোগদান করেন।

প্রধান অতিথির ভাষণে ইঞ্জিনিয়ার মুস্তাফা আনোয়ার বলেন, ইসলামী ব্যাংক শিল্পায়ন, গ্রামীণ অর্থনীতি শক্তিশালীকরণ, কর্মসংস্থান ও কল্যাণমুখী ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করছে। বাংলাদেশের অর্থনীতির দুইটি প্রধান স্তম্ভ -তৈরি পোশাক ও রেমিট্যান্স খাতে ইসলামী ব্যাংক অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। এ ব্যাংক বিশ্বসেরা এক হাজার ব্যাংকের তালিকায় বাংলাদেশের একমাত্র ব্যাংক এবং দেশের সবচেয়ে স্বচ্ছ ও পরিপালনকারী আর্থিক প্রতিষ্ঠান। একটি আন্তর্জাতিকমানের পরিপালনকারী ব্যাংকে উন্নীত হতে কাজ করছে এ ব্যাংক।

সম্প্রতি ব্যাংকের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ‘এশিয়ান ব্যাংকার সিইও লিডারশিপ অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ ও ব্যাংক ‘বেস্ট ম্যানেজড ব্যাংক ইন বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড’ লাভ করে যা ধারাবাহিক অগ্রগতির নির্দেশক। সিএসআর কর্মসূচির মাধ্যমে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষা ও চিকিৎসাসহ আর্ত-মানবতার সেবায় অবদান রাখছে। এ অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন।

জুন-২০১৬ পর্যন্ত ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের আমানত ও বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৬৫ হাজার কোটি টাকা এবং ৫৭ হাজার কোটি টাকা যা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় যথাক্রমে ৫ হাজার কোটি ও ৬ হাজার কোটি টাকা বেশি। ব্যাংকের বৈদেশিক বাণিজ্যের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪৫ হাজার কোটি টাকা যার মধ্যে আমদানি ও রফতানি বাণিজ্য হয়েছে যথাক্রমে ১৭ হাজার কোটি এবং সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকা ও রেমিট্যান্স আহরিত হয়েছে সাড়ে ১৫ হাজার কোটি টাকা। ব্যাংকের বর্তমান গ্রাহক ১ কোটি পনের লাখ যা দেশের ব্যাংকিং গ্রাহকের ১৪ শতাংশ এবং বিশ্বের ইসলামি ব্যাংকিং গ্রাহকের ২৫ শতাংশ।

সম্মেলনে বলা হয়, দেশের তৈরি পোশাক খাত ও রেমিট্যান্সে ইসলামী ব্যাংকের মার্কেট শেয়ার যথাক্রমে ২১ ও ২৫ শতাংশ। শিল্প খাতে বিনিয়োগ ৪৫ শতাংশ এবং চার হাজারের বেশি শিল্প-কারখানা ইসলামী ব্যাংকের অর্থায়নে পরিচালিত হচ্ছে। স্পিনিং শিল্পে এ ব্যাংকের মার্কেট শেয়ার এক-চতুর্থাংশ এবং লৌহ ও ইস্পাত শিল্পে ২১ শতাংশ। আমদানি-রফতানি খাতে এ ব্যাংকের মার্কেট শেয়ার যথাক্রমে ১১ ও ১০ শতাংশ এবং ব্যাংকের মোট বিনিয়োগের ৪৩ শতাংশই এসএমই খাতে যা দেশের এসএমই শিল্পের ২৩ শতাংশ।

গৃহায়ন খাতে ইসলামী ব্যাংকের মার্কেট শেয়ার ১৩ শতাংশ, যা ২৬ লাখ মানুষের আবাসন নিশ্চিত করেছে এবং পরিবহণ খাতে মার্কেট শেয়ার ১৮ শতাংশ যার সুবিধাভোগী ২ কোটির অধিক জনগোষ্ঠি। কৃষি ও কৃষিভিত্তিক শিল্পে এ ব্যাংকের বিনিয়োগ সাড়ে ১৩ শতাংশ এবং বেসরকারি খাতে সার আমদানীতে অর্থায়ন সর্বোচ্চ।

 

প্রতিক্ষণ/এডি/আরএম

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

January 2023
S S M T W T F
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  
20G