উই ওয়ান্ট আওয়ার ভয়েস ব্যাক

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ২, ২০১৫ সময়ঃ ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৪:৪৫ অপরাহ্ণ

প্রতিক্ষণ ডেস্ক

flora sorkar বিশিষ্ট অভিনেত্রী ফ্লোরা সরকার তার ওয়ালে একটি রুপক গল্প দেন যা দিয়ে তিনি অনেক কিছুই বোঝাতে চেয়েছেন। প্রতিক্ষণের পাঠকদের জন্য এই বিশিষ্ট অভিনেত্রীর স্ট্যাটাসটি হুবুহু তুলে দেয়া হল।
কেনিয়ার বিখ্যাত লেখক এনগুগি ওয়া থিংগোর (Ngũgĩ wa Thiong’o) বিখ্যাত উপন্যাস উইজার্ড অব দ্যা ক্র (Wizard of the Crow ) এর পটভূমি একটা কাল্পনিক আফ্রিকান শহর, নাম আবুরিরিয়া। একনায়ক শাসিত রাষ্ট্র। শাসকের নাম বলা হয়না কোথাও, শুধু “ রুলার ” নামে সে পরিচিত। শাসকের চরিত্রের চমৎকার বর্ণনা দেয়া হয় উপন্যাসে।

এই রুলালের অস্তিত্ব শুধু টিভি পর্দায়। সেখানে তার দৈনন্দিন জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত যেমন, খাওয়া, মলত্যাগ, হাঁচি বা নাক ডাকা ইত্যাদি সব ক্যামেরাবন্দি করা হয়। এমনকি তার হাইতোলাও আকর্ষণীয় খবর। কিন্তু হাই ওঠার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় জীবনে কোনো না কোনো ঘটনা ঘটে। যেমন, তার বিরোধীদের শহরের জনবহুল চৌমাথায় চাবকানো হয়। আক্রমণ করে গুড়িয়ে দেয়া হয় গোটা গ্রাম। তীরন্দাজ বাহিনী তীর বিঁধিয়ে মেরে ফেলে অসংখ্য মানুষ ইত্যাদি ইত্যাদি।

তাকে ঘিরে থাকে একদল চাটুকার মন্ত্রী, যাদের নিজেদের মধ্যে বিরামহীন সংঘাত চলে। এই মোসাহেবদের দলই দেশ শাসন করে। এই শাসনে মিশে থাকে হাস্যকার দেখানেপনা ও নিষ্ঠুরতা। দুনীর্তি কোনো বিষয়ই নয় সেখানে। মন্ত্রীদের মধ্যে একজন প্লাসটিক সার্জারি করে কান বড় করে যাতে জনগণের সব কথা তার কানে যায়। আরেক মন্ত্রী তার চোখ দুটো ইলেট্রিক বাল্বের মতো বড় করে যাতে শত্রু সনাক্ত করা যায়। আরেক মন্ত্রী মুখের প্লাস্টিক সার্জারি করে সরকারি প্রপাগান্ডা প্রচারের জন্যে।

এরকমই স্বৈরশাসনের একটা সময়, যে বছর সেই স্বৈরশাসক ঘোষণা দিলেন পৃথিবীর সর্বোচ্চতম টাওয়ার বানানোর পরিকল্পনার কথা, ঠিক সেই সময়ই উপন্যাসের নায়ক কামিতি নামে এক হতভাগ্য বেকার যুবক জঞ্জালের একটা স্তূপের উপর ঘুম থেকে জেগে উঠে আবিষ্কার করলো তার উপর যাদু শক্তি ভর করেছে ( উপন্যাসের শুরুটা এভাবেই হয়েছে)।

সে যাদুবলে পশুপাখিদের সব কথা বুঝতে পারে। ঠিক যেভাবে নবারুণ ভট্রাচার্যের “ হারবার্ট” উপন্যাসের নায়ক হারবার্ট মৃতদের সঙ্গে কথোপকথনের বিষয়টা আবিষ্কার করেছিলো, অনেকটা সেরকম।

শহরের সবাই কামিতির কাছে তাদের সমস্যা নিয়ে আসা-যাওয়া শুরু করে। এভাবে একদিন এক মন্ত্রী তার ভীষণ এক অসুখের কথা নিয়ে কামিতির কাছে যেয়ে হাজির হয়। অসুখটা হলো, মন্ত্রী কিছু জান্তব শব্দ ছাড়া আর কোনো কথা বলতে পারেনা।

কামিতি সেই অসুখের অদ্ভূত এক নাম দিলো, “ ওয়াইটেক” অর্থাৎ “ সাদা হবার উন্মত্ত বাসনা”।এখানে এসে কাহিনী তার স্থলসীমা ছাড়িয়ে চলে যায় সমাজ ইতিহাসের বিস্তীর্ণ জগতে, যেখানে কামিতি একটা বিস্ফোরক কথা বলে, “ একজন ক্রীতদাস প্রথমে হারায় তার নাম তারপর তার মুখের ভাষা।”
কাহিনীর শেষে দেখা যায়, ধীরে ধীরে শাসনতন্ত্রে নিয়োজিত সব ব্যক্তিবর্গ থেকে শুরু করে জনগণ ( যারা আগেই শাসনযন্ত্রের তাপে এবং চাপে তাদের বাকস্বাধীনতা হারিয়েছিলো) বাকরুদ্ধ হয়ে নৈঃশব্দের ভারে নুহ্য হয়ে যাচ্ছিলো, তাদের সবার মুখে শুধু একটাই কথা – “উই ওয়ান্ট আওয়ার ভয়েস ব্যাক” …..
প্রতিক্ষণ/এডি/এনজে

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

May 2024
S S M T W T F
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
20G