খুলশীতে রেলওয়ে কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারনা, গ্রেফতার ৫

প্রকাশঃ নভেম্বর ২২, ২০২২ সময়ঃ ৬:২৭ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৬:২৭ অপরাহ্ণ

সুজা তালুকদার চট্টগ্রাম থেকে

খুলশী থানা কর্তৃক রেলওয়ে কর্মকর্তা পরিচয়ে টেন্ডারের মালামাল হস্তান্তরের আশ্বাসে প্রতারনা পূর্বক টাকা আত্নসাৎ করার ঘটনায় প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম খুলশী থানার পুলিশের বিস্তারিত বিবরন মতে, রেলওয়ে কর্মকর্তার পরিচয় দিয়া খুলশী থানাধীন পাহাড়তলী রেলওয়ে কার্যালয়ের ভিতরে কৌশলে প্রবেশ করতঃ পুরাতন ব্যাটারী প্রদর্শন পূর্বক বাদীর নিকট হইতে ৫ লক্ষ টাকা প্রতারণামূলকভাবে নিয়ে আত্নসাৎ করার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তার নেতৃত্বে খুলশী থানার একটি টিম তথ্য প্রযুক্তি ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করিয়া অত্র মামলার তদন্তে প্রাপ্ত আসামী মোঃ নুরুল হক প্রঃ নুরু (৬০)’কে ২১ নভেম্বর  বেলা দুপুর ২টার পর খিলগাঁও থানার সামনে হইতে, আব্দুল গফুর (৬৪), নাদেরুজ্জামান প্রঃ নাদু (৬৫),  মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রঃ শাহদাত প্রঃ হোসেন (৪৮)’দেরকে ২১ নভেম্বর বেলা ৪টায় মতিঝিল থানাধীন জঙ্গিপীর মাজার এলাকা হইতে এবং  মোজাহেরুল হক প্রঃ মুকুল (৫২)’কে ইং আজ দুপুর ১২টায় আকবরশাহ থানাধীন ইস্পাহানী সি গেইট এলাকা হইতে গ্রেপ্তার করা হয়।

ধৃতকালীন সময়ে জিজ্ঞাসাবাদে বর্ণিত আসামীগণ উপরোক্ত নাম-ঠিকানা প্রকাশ করতঃ মামলার ঘটনাস্থলে প্রত্যক্ষভাবে উপস্থিত থাকিয়া অপরাধটি সংঘটনের বিষয়ে অকপটে স্বীকার করে। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, উপরে বর্ণিত ধৃত ১নং আসামী মোঃ নুরুল হক প্রঃ নুরু (৬০) এজাহারে বর্ণিত মোবাইল নং-০১৭২৪-৬০৮৭৬৭ হইতে, ২নং আসামী আব্দুল গফুর (৬৪) এজাহারে বর্ণিত মোবাইল নং-০১৮৩৯-৭৩৩১২৯ হইতে, ৩নং আসামী নাদেরুজ্জামান প্রঃ নাদু (৬৫) এজাহারে বর্ণিত মোবাইল নং-০১৭৮৬-৩৮৪১৮৯ হইতে এবং ৪নং আসামী মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রঃ শাহদাত প্রঃ হোসেন (৪৮) এজাহারে বর্ণিত মোবাইল নং-০১৮৬৫-০৩৫৭৯৮ হইতে বাদীর মোবাইল ফোনে কল করিয়া ঘটনাস্থলে নিয়ে যায়। উপরে বর্ণিত ধৃত ১ ও ২ নং আসামীদ্বয় রেলওয়ে কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে অপরাপর ৩, ৪ ও ৫নং আসামীদের সহযোগীতায় প্রতারণামূলকভাবে নগদে ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা নিয়া যায়।

উপরে বর্ণিত ধৃত আসামিদের বিরুদ্ধে ঢাকা শহর সহ চট্টগ্রাম মহানগরীতে ভুয়া রেলওয়ে কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণার অপরাধে অভিযুক্ত এমন ১০টি মামলা রহিয়াছে। প্রতিটি প্রতারণার অপরাধ সংগঠিত করার পর তাহারা সিম কার্ড ফেলে দিয়ে নতুন সিম সংযোগ করে আবার পুনরায় প্রতারণার ফাঁদ পাতে।

প্রতারণার ধরণ :
ঢাকা ও চট্টগ্রাম রেলওয়ে কার্যালযের ভিতরে পুরাতন মালামাল (স্ক্রাপ), পুরাতন ব্যাটারি, পোঁড়া মবিল সহ অন্যান্য সামগ্রী রেলওয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহিত আলাপ-আলোচনা করিয়া টেন্ডার পাওয়াই দিবে মর্মে প্রতিশ্রুতি দিয়ে নগদ টাকা গ্রহন করে মোবাইল ফোন বন্ধ করিয়া ভিকটিমের সহিত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়।

উপরে বর্ণিত ধৃত আসামীগণ পেশাদার প্রতারক চক্র। দেশ জুড়ে বিভিন্ন ধানায় একাধিক মামলা আছে জানা গেছে।

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

June 2024
S S M T W T F
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  
20G