বিপিএলে অপ্রতিরোধ্য সিলেট স্ট্রাইকার

প্রথম প্রকাশঃ জানুয়ারি ১০, ২০২৩ সময়ঃ ১০:২৮ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১০:২৮ অপরাহ্ণ

৫৭ রান করা শান্ত আর ৮৪ করা তৌহিদ
বামে ৫৭ রান করা শান্ত আর ৮৪ করা তৌহিদ- ডানে

জিতেই চলেছে সিলেট স্ট্রাইকার। আজ ঢাকাকে হারিয়ে টানা ৪র্থ ম্যাচে জয় ‍পকেটে জমা করে জয়ের ধারাটা অব্যাহতই রেখে মাশরাফির সিলেট। ৬২ রানের বিশাল ব্যবধানে ঢাকাকে উড়িয়ে দিয়েছে সিলেট, ১৯.৩ ওভারে অলআউট ঢাকা। পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষস্থান অটুট সিলেটের।

আজ বিপিএলের ৯ম আসরে সিলেট স্ট্রাইকার আগে ব্যাট করে টস হেরে গিয়েছে। ঢাকা টস জিতে বল হাতে তুলে নিয়েও বোলিংয়ে ‍কুল খুঁজে পায়নি সিলেটের ব্যাটারদের সামনে। এবারই প্রথম দুই শত রানের সীমানা অতিক্রম করেছে কোন দল।

সিলেট আজ ঢাকার বোলাদের তুলধুন করে ২০১ রান জমা করে ৮ উইকেটের বিনিময়ে। ওপেনিং জুটিতে নামা হারিস সিলেটের দলীয় সংগ্রহ ১৭ তখন আউট হন। এরপর শান্ত আর তৌহিদ জুটি ১০৫ পর্যন্ত দ্বিতীয় জুটি টিকিয়ে রাখে। শান্ত ৩৯ বলে ৫৭ রানে ফেরত যাবার পরও তৌহিদ ছিলেন।

জাকির, মুশফিক, পেরেরা আর ইমাদ আউট হলেও তৌহিদ ছিলেন। তার ব্যাটে ভর দিয়েই সিলেট ৬ উইকেটে ১৬১ রানে পা রাখে।

তবে ৫টি বাউন্ডারি আর ৫টি ছক্কার মার দিয়ে মাত্র ৪৬ বলে ৮৪ রান করা তৌহিদের সেঞ্চুরির আক্ষেপ থাকতেই পারে। শেষ দিকে ৪ বলে ৬ রানে অপরাজিত, স্কোর ২০১/৮।

জবাব দিতে নেমে ঢাকা ডমিনেটরস-র টপ অর্ডার হুরমুর করে ভেঙ্গে পেড়ে। দলীয় ১০ রানে ওপেনার আহমেদ শেজাদ (০), আরেক ওপেনার দিলশান (১২) আর সৌম সরকার ৬ রানে সাঁজ ঘরে দর্শক বনে গেলেন। ৩০ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলা ঢাকার জয় বহু দূরের পথ।

৪র্থ উইকেটে মিথুন আর নাসির হোসেন জুটি টিকে থেকে রান তোলার চেষ্টা খানিকটা হয়েছে বটে। তবে তা জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। মোহাম্মদ মিথুন ৪২ রানে আর নাসির ৪৪ রানে আউট। আর ওসমান গনি ১ রানে হতাশ করলে ঢাকার সামনে হার-টা নিশ্চিত হয়ে যায়।

মিডল অর্ডার যদি ইনিংস লম্বা করতে পারত তাহলে হয়তো সুযোগ থাকত জয়ের। কিন্তু সিলেটের বোলিং ঝড়ে ঢাকার দলীয় স্কোর ১৬ ওভারে ১২৭/৮!

শেষ ৪ ওভারে ২৪ বলে ৭৫ রান দরকার, হাতে ছিল ২ উইকেট- অকল্পনীয় বটে। ১৩৯ রানে থেমে যায় ঢাকার মিশন।

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

20G