মৃত্যুর সওদাগর আলফ্রেড নোবেল!

প্রকাশঃ অক্টোবর ২১, ২০১৫ সময়ঃ ২:২২ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:২৫ অপরাহ্ণ

প্রতিক্ষণ ডেস্ক

Alfred_Nobel

ধরুন আপনি নোবেল পুরষ্কার পেয়েছেন। দেশ ও জাতি, সমাজ, রাষ্ট্র এমনকি পুরো বিশ্ব আপনাকে নিয়ে মেতে উঠবে উল্লাসে। অহংকারে ভরবে বুক কিংবা ঈর্ষায় জ্বলবে চোখ। যাই হোক এই নোবেল পুরস্কারের আবিষ্কারক আলফ্রেড নোবেলকে কিন্তু ‘মৃত্যুর সওদাগর’ বলা হয়। হ্যা তাই বলে নোবেল কিন্তু আপনার মৃত্যুর পয়গাম নিয়ে আসে নি। সুতরাং এতো ভয় পাবার কারণ নেই।

আসলে নোবেল পুরষ্কারটি প্রদান করা হয় আলফ্রেড নোবেলের আবিষ্কৃত ডিনামাইট নামক একটি বিষ্ফোরক যন্ত্র বিক্রির টাকা দিয়ে। বলা হয় তার আবিষ্কৃত এ বিষ্ফোরক যন্ত্রটি তখনকার সময়ের সেনাবাহিনীর একমাত্র পছন্দের অস্ত্র ছিল। কিন্তু তখনও কেউ তার আবিষ্কার নিয়ে তাকে কেউ ততটা কটূক্তি করেনি।

১৮৮৮ সালে তার ভাই লুডভিগ মারা যান। আর তখন ফ্রান্সের একটি পত্রিকা ভুল করে আলফ্রেড নোবেলের মৃত্যু ভেবে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করে। আর বিপত্তিটা ঘটে সেখানেই! পত্রিকাটি তাদের শিরেোনামে বলে ‘চলে গেলেন মৃত্যুর সওদাগর’ আর সংবাদ সূচনা ছিল এরকম-‘মানুষকে হত্যার সবচেয়ে দ্রুততম পথটি যে আবিষ্কার করে অনেক টাকার মালিক হয়েছেন সেই আলফ্রেড নোবেল মারা গেছেন’।

পরে আলফ্রেড যখন সংবাদটি পড়েন তিনি তার সম্পর্কে প্রকাশিত সংবাদটি নিয়ে কাউকে কিছু বলেন নি। তিনি তখন ভাবলেন কি করে তার মৃত্যুর পর তার স্মৃতি মানুষের কাছে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা যায়। এর পরেই তিনি তার ডিনামাইট আবিষ্কারের অর্থ দিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন ক্ষেত্রে নতুন আবিষ্কার ও নতুন কিছু যা দ্বারা পৃথিবীর মানুষ উপকৃত হবে সেসব মহাজ্ঞানী ও গুণীজনদের জন্য পুরষ্কারের ব্যবস্থা করেন। কিন্তু তাও তিনি মৃত্যুর সওদাগর উপাধি থেকে মুক্তি পাননি। কারণ নোবেল পুরস্কার চালুর কিছুদিনের মধ্যে তিনি আবার একটি অনিশ্চাকৃত ভুল করেন। তিনি তার প্রথম পুরষ্কারটি দেন তারই একজন ঘনিষ্ট সহচর ও মুখপাত্র বার্থা কিনসলিকে। যাকে কিনা যুদ্ধের মুখপাত্র বলা হয় !! হ্যা কারো কারো কাছে আলফ্রেড নোবেলের জন্য নয় বরঞ্চ মৃত্যুর সওদাগর নামেই পরিচিত ! যাই হোক আজ কিন্তু তার জন্মদিন। শুভ জন্মদিন জানাতে তো দোষ নেই।

প্রতিক্ষণ/এডি/এসএবি

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

February 2024
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
242526272829  
20G