সাইনোসাইটিসের কারণ ও চিকিৎসা

প্রকাশঃ জানুয়ারি ৯, ২০১৬ সময়ঃ ১:১০ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৮:৫৪ পূর্বাহ্ণ

প্রতিক্ষণ ডেস্ক

sinusitisআমাদের নাক ও কপালের মাঝে চামড়ার নিচে ৮টি কুঠুরি থাকে। এই কুঠুরিগুলোকে বলা হয় সাইনাস। সাইনোসাইটিস হলো এই সাইনাসগুলোর ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশন। সাইনোসাইটিসকে দু’ভাগে করা যায় যায়- একিউট ও ক্রনিক।

একিউট সাইনোসাইটিসে রোগী ঘুম থেকে উঠে কোনো অসুস্থতা বোধ করে না। কিন্তু বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মাথায় যন্ত্রণা শুরু হয়। সূর্য ডোবার আগে পর্যন্ত রোগী যন্ত্রণায় ছটফট করে। কিন্তু সূর্য ডোবার পর আর ছটফটানি বা যন্ত্রণা থাকে না।

ক্রনিকে আক্রান্ত রোগীর মাথার যন্ত্রণা থাকে না। তবে ঘুম থেকে ওঠার পর মাথাব্যথা শুরু হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা সেরে যায়।

সাইনোসাইটিসের ফলে মুখের উপরিভাগে কোনো স্থানে বেশ ব্যথা করে। আঙুল দিয়ে চাপ দিলে কোন সাইনাস বেশি আক্রান্ত হয়েছে তা সহজে বুঝা যায়।

কারণ:

এটি বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে। নাকের হাড় বাঁকা থাকলে এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি। এছাড়া দূষিত পানিতে গোসল, স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে দীর্ঘদিন বাস, ধূমপান ছাড়াও নস্যি ব্যবহার করলে সাইনোসাইটিস হতে পারে। রাস্তাঘাটে চলার সময় নাকের মধ্যে ধুলা প্রবেশ করলেও সাইনোসাইটিস হতে পারে। কম বয়সে অনেকেরই হাম, চিকেন পক্স, টনসিল, ইনফুয়েঞ্জা হয়ে থাকে। এসব রোগের জীবাণু পুরোপুরি নির্মূল না হলে পরবর্তীকালে তা নাকের পেছনে বাসা বাঁধে। ফলে কিছুদিন অন্তর নাক থেকে পানি পড়তে থাকে, মাঝে মাঝে মাথাব্যথা হয়। এ অবস্থায় যদি সঠিক চিকিৎসা না করা হয়, তাহলে ক্রনিক সাইনোসাইটিসে পরিণত হয়। এতে নাকে সব সময় দুর্গন্ধ এবং কখনো কখনো নাক থেকে রক্ত পড়ে। এ থেকে পরে ফেরিনজাইটিস, ব্রঙ্কাইটিস, এমনকি আর্থ্রাইটিসও হতে পারে। ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে চোখও।

চিকিৎসা:

চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করতে হবে। এছাড়া ধুলাবালি এড়িয়ে চলতে হবে। ধূমপান থেকে বিরত থাকতে হবে। দাঁতের ক্ষয় এবং অন্যান্য রোগের চিকিৎসা করাতে হবে। ব্যথা থাকলে ব্যথানাশক ওষুধ খাওয়া যেতে পারে। ওষুধে ভালো না হলে, সাইনাস ওয়াশ করতে হবে। অনেকের ভুল ধারণা আছে যে, একবার সাইনাস ওয়াশ করলে বারবার করতে হয়। ধারণাটি ঠিক নয়। ব্যাকটেরিয়াজনিত সাইনোসাইটিস ওয়াশ করে উপযুক্ত মাত্রা এবং নিয়মে অ্যান্টিবায়োটিক খেলে রোগী সম্পূর্ণ ভালো হয়।

প্রতিক্ষণ/এডি/এফটি

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

February 2024
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
242526272829  
20G