একটি মানবিক ও শিক্ষণীয় গল্প

প্রকাশঃ এপ্রিল ১৫, ২০১৭ সময়ঃ ৯:৩১ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:৩৪ অপরাহ্ণ

পাকিস্তানের একজন বিশ্বখ্যাত চিকিৎসক প্রফেসর ডাঃ ইশান খান। তিনি নিউরো মেডিসিন (মস্তিষ্ক)বিশেষজ্ঞ। মস্তিষ্কের সব জটিল রোগের চিকিৎসায় তাঁর খ্যাতি পুরো বিশ্বব্যাপী। একবার ডাঃ ইশান বিমানে চড়ে পাকিস্তানের করাচী থেকে অন্য একটি শহরে যাত্রা করলেন। কিছু দূরে যেতেই বিমান ঝড়ের কবলে পড়লো। কোনো উপায় না দেখে পাইলট বিমানের জরুরী অবতরণ করালেন দূরের ছোট্ট একটি বিমান বন্দরে। বিমান থেকে সব যাত্রী নেমে বাইরে দাঁড়ালো, ডাক্তার ইশানও নামলেন। তিনি পাইলটকে জিজ্ঞাসা করলেন অন্য কোনোভাবে ঐ শহরে যাওয়া যাবে কিনা। কারণ তাঁর ঐ শহরে যাওয়াটা খুব জরুরী।বহু চেষ্টার পর ডাক্তার ইশানের জন্য একটি ভ্যান গাড়ীর ব্যবস্থা করা হলো। ডাক্তার সাহেব ভ্যানে রওয়ানা হলেন মূল সড়কে গিয়ে গাড়ি ধরার জন্য।

তখন গভীর রাত, চারদিকে বিদ্যুতের ঝলকানী আর ভয়ঙ্কর শব্দ; যেন আকাশের সব মেঘ আজ ধরার বুকে নামার প্রতিক্ষায় প্রহর গুনছে। নাহ, এ পরিস্থিতে আর এই ভ্যান গাড়ীতে বসে থাকা সম্ভব নয়। ডাঃ ইশান বড্ড ভয়ও পাচ্ছেন। দূরে একটা ছোট্ট কুটির দেখা যাচ্ছে, সেখানে নিভু নিভু আলো জ্বলছে, তিনি দৌঁড়ে গেলেন ঘরের দিকে।এক বৃদ্ধা দরজা খুললেন, ডাঃ তাঁর সব ঘটনা খুলে বললেন এবং রাতে থাকার আশ্রয় চাইলেন। বৃদ্ধা ডাঃ ইশানকে আপ্যায়ন করলেন, ওজু-নামাজের ব্যবস্থা করলেন। নামাজ পড়তে গিয়ে তিনি পাশের বিছানায় দেখলেন একটি অসুস্থ ছোট্ট শিশু ঘুমিয়ে আছে। ডাঃ সাহেব বৃদ্ধাকে জিজ্ঞাসা করলেন, এই শিশুটি কে এবং তার কি হয়েছে?

বৃদ্ধা বললেন,  ‘এ শিশুটি আমার নাতি, তার মা বাবা মারা গেছে। সে খুব অসুস্থ, তার চিকিৎসা এ দেশে কোনো ডাক্তারই করতে পারছে না, তবে একজন বিশেষজ্ঞ পারবেন বলে সবাই পরামর্শ দিয়েছেন। আমরা ডাঃ সাহেবের সাথে দেখা করার জন্য যতবার চেষ্টা করলাম  ততবারই চেম্বার থেকে আমাদের ৬ মাস পরের সিরিয়াল দিয়ে দেখা করতে বলেছেন।আমি প্রতি ওয়াক্ত সালাতের শেষে আল্লাহর কাছে বলি ওগো দয়াময় এ শিশুটি এতিম, ও খুব অসুস্থ, তোমার কুদরতী ক্ষমতা দিয়ে আমাদের সাহায্য করো। ডাঃ সাহেবের সাথে আমার দেখা করার পথ সহজ করো।প্রসেসর ডাঃ ইশান বললেনঃ মা সে ডাক্তারের  নাম কি?

বৃদ্ধা বললেন,  ডাঃ ইশান! এবার ডাক্তার অঝর ধারায় চোখের পানি ফেলে কাঁদছেন আর বলছেন ‘মাগো আমিই ডাক্তার ইশান।এখন বুঝেছি কেন আমার প্লেন নষ্ট হলো, কেন এতো ঝড় তুফান নেমে এলো, কেনইবা আমি এ বাড়িতে আশ্রয় নিলাম। বৃদ্ধা দুহাত তুলে অতঃপর মহান রবের সেজদায় চিৎকার করে কাঁদতে লাগলেন। বাহিরে অঝর ধারায় বৃষ্টি হচ্ছে, আর জীর্ণ কুটিরে জায়নামাযে বসে কাঁদছেন বিশ্বের এক খ্যাতনামা চিকিৎসক ডাঃ ইশান।

শিক্ষণীয়:   কখনো  আল্লাহর ক্ষমতাকে সামান্য ভাববেন না, মনে রাখবেন আল্লাহর জন্য অসম্ভব বলে কিছুই নেই। আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হবেন না। 

 

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

February 2024
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
242526272829  
20G