চবি সেজেছে নতুন রূপে

প্রথম প্রকাশঃ অক্টোবর ৩১, ২০১৫ সময়ঃ ৮:১৮ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৮:১৮ অপরাহ্ণ

চবি প্রতিনিধি

imagesচট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে প্রথম বর্ষ (সম্মান) ভর্তি যুদ্ব। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায় রোববার থেকে শুরু হওয়া ভর্তি পরীক্ষাকে সামনে রেখে নতুন সাজে সাজানো হয়েছে চবিকে।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ঘুরে দেখা যায় নতুনদের আগমনে শাটলের সবুজ ক্যাম্পাস সেজেছে নতুনরুপে।বিশ্ববিদ্যালয় জিরো পয়েন্ট এর কাছে কাটা পাহাড় দিয়ে হাঁটার সময় রাস্তার দুপাশে নতুন ফুল সেই সাথে মনমুগ্ধকর পরিবেশ জানিয়ে দেয় নতুনের আহবান।

সামনে এগোলে শহীদ মিনার এর পাশে চোখ পড়বে বুদ্বিজীবী চত্বর পরিষ্কারের কাজ,তার একটু সামনে আব্দুল করিম ভবনে ঘসামাজার কাজ করছেন মিস্ত্রিরা। বিশাল এই ভর্তি কার্যক্রমকে সামনে রেখে সকল প্রস্তুতি গ্রহন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষার সময় কোন প্রকার অপ্রতিকর পরিস্থিতি এবং নিবির্ঘ্নে ভর্তি পরীক্ষা শেষ করার লক্ষ্যে জিরো টলারেন্স ব্যবস্থা গ্রহন করেছে প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বোটানিক্যাল গার্ডেন,ফরেস্টি হেলিপ্যাড,প্যাগাডা ও ঝর্না সংলন্ন এলাকা সহ বেশ কিছ নির্জন স্থানে ভর্তিচ্ছুদের না যাওয়ার অনুরোধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় প্রবেশমুখ বন্ধের পাশাপাশি ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষেধসহ ক্যাম্পাসে মোটর সাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। ভর্তিচ্ছু কোন শিক্ষার্থী যেন কোন প্রকার র‌্যাগিং এর স্বীকার না হয় সেজন্য বসানো হবে ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়াও সার্বিক নিরাপত্তা ও যেকোন অরাজক পরিস্থিতি এড়ানোর লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ ২০ টি স্পটে মোতায়েন করা হবে র‌্যাব-৭ এর একাধিক টিম,ডিএসবি ছাড়াও প্রায় ৩৫০ জন অতিরিক্ত পুলিশ।

এ বিষয়ে হাটহাজারী থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন,“ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন যে কোন প্রকার অপ্রতিকর পরিস্থতি এবং সুষ্ঠভাবে সম্প্রন্ন লক্ষ্যে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালত এর পাশাপাশি র‌্যাব সহ সাদা পোশাকে ডিএসবি কাজ করে যাবে।” বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্ট সহ ক্যাম্পাসের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্পটে সিসি টিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। যার দ্বারা পুরো বিশ্ববিদ্যালয় মনিটরের কথা জানালেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী।

এদিকে বিগত সময়ে ছাএলীগের বিরুদ্ধে র‌্যাগিং করার অভিযোগ থাকলেও বর্তমান ছাএলীগ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন এর পাশাপাশি সুষ্ঠ পরীক্ষা লক্ষ্যে নিজেরা র‌্যাগিং প্রতিরোধে সহ বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এসব কর্মসূচি মধ্যে র‌্যাগিং বিরোধী র‌্যালী,সন্ধ্যায় আলোকচিত্র প্রদশর্ণী আয়োজন করা হয়েছে।

এছাড়াও সার্বিক বিষয়, বিভিন্ন অনিয়ম এবং শিক্ষার্থীদের সহায়তার লক্ষ্যে ৫০ জন এর একটি টিম গঠন করা হয়েছে। এসব কর্মসূচির সত্যতা মিলল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো আলমগীর টিপুর কথায়।তিনি বলেন,“দূরদুরান্ত থেকে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে এসে নানা প্রকার সমস্যার সন্মুখীন হয়।”এসব দিক বিবেচনা করে ছাত্রলীগ বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। একই কথা জানিয়ে সাধারণ সম্পাদক এইচম এম ফজলে রাব্বি সুজন বলেন,“ছাএলীগ সব সময় সাধারণ শিক্ষার্থীদের স্বার্থে কাজ করে গেছে। বর্তমান কর্মসূচির মাধ্যমে ছাএলীগ সেই ধারা অব্যাহত রেখেছে।

প্রতিক্ষণ/এডি/বিএ

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

20G