নগর জীবনে বিরক্ত হয়ে গুহাবাস

প্রকাশঃ মার্চ ৮, ২০১৭ সময়ঃ ৯:৪৭ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:৪৭ অপরাহ্ণ

প্রতিক্ষণ ডেস্ক:

রূপকথার গল্পে এমন অনেক অভিমানী রাজকুমার রয়েছে, যারা অভিমানবশত নিজের রাজ্য থেকে হারিয়ে যান সবার অগোচরে। যাকে বলা হয় নিরুদ্দেশ। বাস্তবে, এই রকমেরই একটি চরিত্র ইউরি।

নগর জীবনের এখন একটিই বাস্তবতা, প্রতিনিয়ত ছুটে চলতে হবে আগামীকালের জন্য। এখানে নেই ভুল সংশোধনের মত কোন জায়গা, রয়েছে শুধুই যান্ত্রিকতা। এ থেকে গুহার জীবন শ্রেয়। এমন ধ্যান ধারণা থেকেই, সবকিছু ছেড়ে স্বেচ্ছায় গুহার জীবন বেছে নিয়েছে রাশিয়ান নাগরিক ইউরি।

পার্থিব বিভিন্ন বিষয়ের সাথে খাপ খাইয়ে নিতে না পেরে বেশ বিরক্ত হয়েই, বছর পাঁচেক আগে আইনজীবী পেশা ছেড়ে এই অদ্ভূত সিদ্ধান্ত নেন ইউরি। তবে একা নন, নিজের পালিত খরগোশ পেতরুস্কাকে নিয়ে গুহাবাসী হন তিনি।

মস্কো থেকে ৬০ মাইল দূরে একটি গুহায় থাকছেন ইউরি। গুহাগৃহের দেয়াল তৈরীতে মাটি, খড়কুটা, কাঠ আর আর্দ্রতা খেকে ছাদকে বাঁচাতে তিনি ব্যবহার করেছেন পানি নিরোধক কাপড়।

গুহাবাসী হলেও ইউরি প্রাচীন গুহাবাসীর ন্যায় জীবন-যাপন করছেন তা কিন্তু নয়। আর পাঁচটি রাশিয়ান পরিবারে প্রচলিত চুলার মাধ্যমে গুহায় রান্নার ব্যবস্থা করেছেন তিনি। এখানে গড়ে তুলেছেন লাইব্রেরি । এছাড়াও গুহায় রয়েছে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিদ্যুৎ, কম্পিউটার এমনকি ইন্টারনেটের ব্যবস্থাও। বলা যায়, এটি একটি আধুনিক গুহা আর ইউরি আধুনিক গুহাবাসী।

বর্তমানে, গুহার এই জীবন নিয়ে বেশ সস্তুষ্ট ইউরি। নগর জীবনের চেয়ে এ অনেক শান্তিময় বলে মনে করেন তিনি।

 

প্রতিক্ষণ/এডি/এস.আর.এস

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য



আর্কাইভ

February 2024
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
242526272829  
20G