বন্ধুর সঙ্গে অভিমান দূর করবেন যেভাবে

প্রথম প্রকাশঃ মার্চ ১৭, ২০১৫ সময়ঃ ২:৩৪ অপরাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:৪২ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট, প্রতিক্ষণ ডট কম

92858_1-600x320কোনো একজন মানুষকে সঙ্গী করে আমরা জীবনে চলার পথে এগিয়ে যাই। এর মধ্যে বন্ধুত্ব -এমন একটি সম্পর্ক, যা থাকে সবকিছুর ঊর্ধ্বে। তাই বলে কি বন্ধুত্বে ফাটল ধরে না? দূরত্ব তৈরি হয় না? হতেই পারে! হয়তো ছোট্ট একটি কারণেই প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে দূরত্ব সৃষ্টি হয়ে যায়। কিন্তু কী করবেন তখন? চিন্তা না করে বন্ধুর সঙ্গে মনোমালিন্য দূর করার উপায় দেখে নিন।

দোষ হয়তো আপনার বন্ধুরই। উদার হোন, ক্ষমা করে দিন তাকে। কেননা বন্ধুত্ব মানেই যে যেমন, তকে ঠিক সেভাবেই গ্রহন করা ও ভালোবাসা। আর যদি ভুল হয় আপনার, অকপটে ক্ষমা চান। মনে রাখবেন, ক্ষমা চাইলেই কেউ ছোট হয়ে যায় না। বন্ধুর সামনে তো একদম না।

বন্ধুর ওপর ভীষণ অভিমান হচ্ছে? মন খারাপ খুব? পুরনো দিনের কথা ভাবুন, আপনারা একসঙ্গে কত সুন্দর সময় কাটিয়েছেন সেগুলো ভাবুন। দেখবেন, রাগ ও অভিমান অনেকটাই কমে গেছে! এবার বন্ধুর সাথে মিটমাট করে নিন।

বন্ধুর সঙ্গে সম্পর্ক যত খারাপ দিকেই গড়াক না কেন, প্রতিশোধ নেয়ার কোনোরকম চেষ্টা করবেন না। এতে আপনাদের বন্ধুত্বের সম্পর্ক চিরতরে নষ্ট হতে পারে। রাগের মাথায় বন্ধুর একান্ত গোপন কথা অন্য কাউকে বলে ফেলাও কিন্তু এক ধরনের প্রতিশোধ। তাই ভুলেও এ কাজ করবেন না।

ঝগড়ার জের ধরে অন্যদের সামনে বন্ধুকে ছোট করবেন না। এমন কোনো কথা বলবেন না যাতে অন্যরা আপনাদের বন্ধুত্ব নিয়ে কটু কথা বলতে পারে। বন্ধুর প্রতি নিজের রাগ, ক্ষোভ বা অভিমান অন্যদের সামনে প্রকাশ করে ফেললেও এটা মাথায় রাখুন যে, আপনার বন্ধুর অপমান মানে কিন্তু আপনার নিজেরই অপমান।

ঝগড়া বা মনোমালিন্যের কারণে যদি বন্ধুর সঙ্গে যোগাযোগ নাও থাকে, তবে তার কাছের মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন। এই মানুষদের কাছেই আপনি আপনার বন্ধুর খবরাখবর পাবেন। প্রয়োজনে এরাই হয়ে উঠবেন আপনার ও আপনার বন্ধুর যোগাযোগের মাধ্যম।

বন্ধুত্বে ইগোর কোনো স্থান নেই। ইগোর কারণে নষ্ট হতে পারে বন্ধুত্বের মতো চমৎকার একটি সম্পর্ক, হারাতে পারেন প্রিয় বন্ধুকে। ঝগড়া যদি মারাত্মক পর্যায়েরও হয়, এই জেদ নিয়ে বসে থাকবেন না যে, আমি কেন আগে কথা বলবো, সে কেন আগে বলবে না? এতে ক্ষতি আপনারই!

আপনার বন্ধুটি হয়তো আপনার ওপর রেগে গিয়ে কথা বলছেন না বা যোগাযোগও করছেন না, তাকে বিভিন্নভাবে মেসেজ পাঠাতে থাকুন। সেটা হতে পারে ফোনে অথবা ফেসবুকে। অথবা তাকে পাঠাতে পারেন কার্ড, যেখানে লেখা থাকবে আপনি তাকে মিস করছেন। মোটকথা, সব সময় তাকে অনুভব করাতে থাকুন যে আপনি তার কথা ভাবছেন।

প্রতিক্ষণ/এডি/রবি

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

0cc0