বিসিবির ঘোষণা – ওডিআই সিরিজে তামিম নেই

প্রথম প্রকাশঃ ডিসেম্বর ২, ২০২২ সময়ঃ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ.. সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার বিকেলেই বিসিবি বস পাপন বলে ছিলেন তামিম আছে না নেই, তা জানিয়ে দেবেন। অবশেষে বিসিবি স্ক্যান রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে তামিম ইকবালকে সিরিজ থেকে বাদ দিতে বাধ্য হলো। কাল বাদে পরশু রোবার ভারতের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামবে বাংলাদেশ। আজ বিসিবি আনুষ্ঠনিক ভাবে তামিমের ওডিআই সিরিজে না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

এর আগে এ খবর অবশ্যই বাংলাদেশে শিবিরের জন্য একটা বিশাল ধাক্কা। টি২০ বিশ্বকাপ থেকেই ইনুজরি সমস্যায় জর্জরিত টাইগাররা। পিঠের ইনজুরিতে তাসকিন আহমেদ প্রথম ওডিআই থেকে বাদ পড়েছেন আগেই। পরের ম্যাচগুলিতেও খেলতে পারবেন কিনা তাও বিসিবি এখনও জানে না। এবার ওডিআই সিরিজ থেকেই ছিটকে গেলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

বিসিবির ফিজিও বাসিদুল ইসলাম খান বলেছেন, এমআরআই স্ক্যানের রিপোর্টে তামিমের ইনজুরির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। কুঁচকিতে তামিম ইনজুরি আক্রান্ত হন। স্বাভাকি ভাবে ১৪ দিনের আগে তামিমের পক্ষে মাঠে ফেরা সম্ভব নয় বলেই ওডিআই সিরিজে তাকে রাখা সম্ভব হচ্ছে না।

তামিম গেল বুধবার শের এ বাংলা স্টেডিয়ামে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন। ম্যাচ চলাকালীন কুঁচকিতে চোট পান। বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, তাঁকে দুই সপ্তাহ বিশ্রাম নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। ১৪ ডিসেম্বর থেকে ভারত-বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট। ফলে সেই টেস্টেও অনিশ্চিত হয়ে পড়লেন তামিম। বাংলাদেশের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিনও সে কথা মেনে নিচ্ছেন। তামিমের পরিবর্তে কে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন এবং পরিবর্ত হিসেবে কাকে নেওয়া হবে তা দ্রুতই জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানাচ্ছেন মিনহাজুল।

পিঠে চোটের কারণে তাসকিন আহমেদও নেই। ফলে পূর্ণশক্তির ভারতীয় দলের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বোলিং বিভাগেরও শক্তি কমে গেল। তাসকিনের ব্যাকআপ হিসেবে দলে নেওয়া হয়েছে শরিফুল ইসলামকে। তিনি প্রথম একাদশেও চলে আসতে পারেন। তাসকিনের চোটের দিকেও নজর রাখা হচ্ছে। ফলে তাঁরও ওডিআই সিরিজ থেকে ছিটকে যাওয়ার আশঙ্কা থাকছেই। ২০১৫ সালের পর আজই ভারতীয় দল দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে বাংলাদেশের ঢাকায় পৌঁছেছে। ডিসেম্বরের ৪ ও ৭ তারিখ ঢাকায় এবং ১০ তারিখ চট্টগ্রামে হবে একদিনের সিরিজের ম্যাচগুলি। চট্টগ্রামে প্রথম টেস্ট ১৪ ডিসেম্বর থেকে। শেষ টেস্ট ঢাকার মীরপুরে ২২ ডিসেম্বর থেকে। ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজ শুরুর আগে দুই তারকার ছিটকে যাওয়া নিঃসন্দেহে সমস্যা বাড়াল বাংলাদেশের।

আরো সংবাদঃ

মন্তব্য করুনঃ

পাঠকের মন্তব্য

20G